আগরতলা, ২ মে: আগরতলা থেকে গুয়াহাটি যাওয়ার পথে মঙ্গলবার গভীর রাতে আসামের ডিমা হাসাওতে মর্মান্তিক বাস দুর্ঘটনায় দ্রুত তৎপর হলো রাজ্য সরকার। এই দুর্ঘটনায় নিহত রাজ্যের যুবক দীবরাজ দেববর্মার পরিবারকে সর্বতো সহায়তা প্রদানের জন্য ঐকান্তিক উদ্যোগ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী প্রফেসর ডাঃ মানিক সাহা। এর পাশাপাশি ডিমা হাসাওর ঘটনাস্থলে প্রশাসনিক টিমকে পাঠানোর নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে আহত ব্যক্তিদের উন্নত চিকিৎসার জন্য যাবতীয় খোঁজখবর নিলেন তিনি। 
                   উল্লেখ্য, মর্মান্তিক বাস দুর্ঘটনায় নিহত দীবরাজ দেববর্মা ধলাই জেলার বাসিন্দা। গুয়াহাটি যাওয়ার পথে মঙ্গলবার গভীর রাত ১২টা ১৫ নাগাদ আসামের ডিমা হাসাওতে তাদের বাসটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হন। আহতদের অধিকাংশই ছিলেন রাজ্যের বাসিন্দা। পরবর্তী সময়ে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ঘটনা সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরই মুখ্যমন্ত্রী ডাঃ সাহার নির্দেশে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করে ত্রিপুরা সরকার। 
                              এবিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুটি পৃথক বিবৃতিতে মুখ্যমন্ত্রী জানান, আসামের ডিমা হাসাও জেলায় একটি দুর্ভাগ্যপূর্ন বাস দুর্ঘটনায় রাজ্যের একজন যাত্রীর মৃত্যু হয় ও কয়েকজন আহত হন। এই ঘটনায় আমি অত্যন্ত মর্মাহত বোধ করছি। 
                আমি নিহত যাত্রীর পরিবার পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি ও আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।
                 অপর এক বিবৃতিতে মুখ্যমন্ত্রী জানান, আসামের ডিমা হাসাওতে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিবর্গের সাহায্যার্থে ত্রিপুরা সরকারের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই ডিসিএম জিনিয়াস দেববর্মা এবং ডাঃ অরিন্দম দাসকে ঘটনাস্থলে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই দুর্ঘটনায় আহতদের যথাশীঘ্র আরোগ্য কামনা করছি।